ঢাকা: ২০১৯-০২-২১ ২১:৩২

Khan Brothers Group

চট্টগ্রামের ৭টি কেন্দ্রে ভুল প্রশ্নপত্র প্রণয়ন

এশিয়ানমেইল২৪.কম

প্রকাশিত : ০৭:৩০ পিএম, ২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ শনিবার | আপডেট: ০৯:০০ এএম, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ রবিবার

ছবি: সংগৃহিত

ছবি: সংগৃহিত

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে এসএসসি পরীক্ষার প্রথমদিনে সাতটি পরীক্ষা কেন্দ্রে কিছু পরীক্ষার্থীকে একবছর আগের সিলেবাসে প্রণয়ন করা প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা দিতে হয়েছে। ‘কেন্দ্র সচিবদের ভুলে’ এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ড। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
আজ শনিবার থেকে সারাদেশে একযোগে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা (এসএসসি) শুরু হয়েছে। প্রথমদিনে বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রথমদিনের পরীক্ষায় যে সাতটি কেন্দ্রে এই ভুলের ঘটনা ঘটেছে সেগুলো হচ্ছে- চট্টগ্রাম নগরীর মিউনিসিপ্যাল মডেল হাইস্কুল, পতেঙ্গা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়, হালিশহরের খাজা গরীবে নেওয়াজ উচ্চ বিদ্যালয় ও ডা.খাস্তগীর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এবং কক্সবাজারে পেকুয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, উখিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এবং পালং আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়।

এরমধ্যে ডা. খাস্তগীর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশ নেওয়া দেড় হাজার শিক্ষার্থীর মধ্যে ১৪ জন ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা দেন বলে জানিয়েছে শিক্ষাবোর্ডের কর্মকর্তারা। অন্য ছয় কেন্দ্রে কতজন পরীক্ষার্থী এই ভুলের শিকার হয়েছেন, তা জানাতে পারেনি শিক্ষা বোর্ড।

ইতোমধ্যে ওই সাত কেন্দ্রে দায়িত্ব পালনকারী কেন্দ্র সচিবদের ‘শোকজ’ করা হয়েছে জানিয়ে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাহবুব হাসান বলেন, তদন্ত করে বিধি অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, এবার বাংলা পরীক্ষা ২০১৬, ২০১৮ এবং ২০১৯ সালের সিলেবাসের প্রশ্নপত্র অনুসারে হওয়ার কথা।

“এর মধ্যে সাতটি কেন্দ্রে কেন্দ্র সচিবদের ভুলে ২০১৯ সালের সিলেবাসে যাদের পরীক্ষা দেওয়ার কথা, তাদের মাঝে ২০১৮ সালের সিলেবাস অনুসারে প্রণীত প্রশ্নপত্র বিতরণ করা হয়েছে।"

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, “কতজন শিক্ষার্থীর ক্ষেত্রে এটা হয়েছে, তা জানা সম্ভব হয়নি। পরে বিস্তারিত জানাতে পারব।

“তবে এতে পরীক্ষার্থীরা যাতে কোনোভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত না হন, সে ব্যবস্থা অবশ্যই করা হবে," বলেন চট্টগ্রাম বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক।

চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাহবুব হাসান বলেন, এবার ২০১৮ ও ২০১৯ সালের সিলেবাস ধরে প্রশ্নপত্র তৈরি করা হয়েছিল। কেবল মাত্র যারা মনোন্নয়ন পরীক্ষার্থী তাদের জন্য ২০১৮ সালের সিলেবাসের প্রশ্নপত্র। কিন্তু সাতটি কেন্দ্রে ভুলবশত নিয়মিত পরীক্ষার্থীদেরও ২০১৮ সালের প্রশ্নপত্র দেওয়া হয়েছে। সব পরীক্ষার্থী নয়, একেকটি কেন্দ্রে ১০-১২ জন করে পরীক্ষার্থী এই ভুলের শিকার হয়েছে।

বাংলা প্রথমপত্র পরীক্ষায় চট্টগ্রাম বোর্ডের অধীনে ১৯০টি কেন্দ্রে মোট এক লাখ ২৪ হাজার ৬৯১ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়েছে। বোর্ডের কোথাও কোনও পরীক্ষার্থীকে বহিস্কার করা হয়নি।

ও/র