ঢাকা: ২০১৯-০১-২৪ ১৯:২৪

Khan Brothers Group

জাপা পাচ্ছে ৪২, বিকল্পধারা ৩ আসন: ওবায়দুল কাদের

এশিয়ানমেইল২৪.কম

প্রকাশিত : ০৩:৫০ পিএম, ৭ ডিসেম্বর ২০১৮ শুক্রবার | আপডেট: ০৬:৪২ পিএম, ৭ ডিসেম্বর ২০১৮ শুক্রবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত


নিজস্ব প্রতিবেদক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহজোটের আসন বণ্টন চূড়ান্ত হয়েছে জানিয়ে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, মহাজোটের শরিক এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টিকে ৪০ থেকে ৪২টি আসন এবং বদরুদ্দোজার নেতৃত্বাধীন বিকল্পধারাকে তিনটি আসন দেয়া হচ্ছে।  

শুক্রবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ তথ্য জানান তিনি।

ওবায়দুল কাদের জানান, আওয়ামী লীগের জন্য ২৪০টি আসন রাখা হয়েছে। বাকি ৬০টি আসন ১৪ দল ও তার শরিকদের ছাড়া হচ্ছে। আজ রাতেই তিনশ’ আসনের মনোনয়নের একক প্রার্থীদের তালিকা দলীয় সভানেত্রীর হাতে দেয়া হবে। তিনি এটি চূড়ান্ত করবেন। আগামীকালই তারা নির্বাচন কমিশনে চূড়ান্ত তালিকা জমা দেবেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমরা মনোনয়ন দেওয়া সমাপ্ত করেছি, যারা পেয়েছে তাদের চিঠি দেয়া হয়েছে। ১৭টি আসনে ডাবল প্রার্থী ছিল, আমরা সিঙ্গেল করে নিয়ে এসেছি। বেশির ভাগই চিঠি দিয়ে দেয়া হয়েছে। যারা যারা বাকি আছেন তারা নিয়ে যাবেন জাহাঙ্গীর কবির নানক সাহেবের কাছে থাকবে।

তিনি বলেন, বিকল্পধারাকে তিনটি আসন দেওয়া হয়েছে। শরিকদের যারা আছেন তারা যদি আরও আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চান নিজেদের প্রতীকে করতে পারবেন। আমরা শুধু নৌকা প্রতীকে কয়েকটা আসন দিলাম। সবারই আকাঙ্ক্ষা বেশি পেতে চায়, তবে আমরা এর বেশি দিতে পারছি না। আশা করি প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচন হবে।

ওবায়দুল কাদের জানান, ওয়ার্কার্স পার্টিকে ৫, ইনুর নেতৃত্বাধীন জাসদকে ৩, তরিকতকে ২, নুরুল আম্বিয়ার নেতৃত্বাধীন জাসদকে ১, বিকল্পধারাকে তিন, জেপিকে (মঞ্জু) ২টি আসন দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, সব মিলিয়ে শরিকদের ৫৫-৬০টি আসনে ছাড় দিয়েছে আওয়ামী লীগ। এর মধ্যে জাতীয় পার্টি পাবে ৪০-৪২টি আসন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ২৪০ জন মোটামুটি আওয়ামী লীগের চূড়ান্ত প্রার্থী, তবে দুই-একজন এদিক ওদিক হতে পারে। জয়ী হতে পারেন এমন প্রার্থী দেখে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

ধানমন্ডি আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে থেকে বেরিয়ে জাসদ সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার সাংবাদিকদের বলেন, আমরা নৌকা মার্কায় তিনজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবো। এছাড়া আমাদের জাসদের দলীয় প্রতীকে ৩৯ জন প্রার্থী দেওয়া হয়েছে।

বিকল্পধারা মহাসচিব মেজর (অব.) আবদুল মান্নান বলেন, আমাদেরকে তিনটি আসন আপাতত দেয়া হয়েছে। আরও কয়েকটি আসনের ব্যাপারে আলোচনা চলছে। আশা করি আমরা পাবো।

শরিকদের মধ্যে যারা নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবেন তারা হলেন-

যুক্তফ্রন্টের (বিকল্পধারা) জন্য তিন আসন ছেড়েছে আওয়ামী লীগ। এগুলো হচ্ছে- মাহী বি চৌধুরী (মুন্সিগঞ্জ-১), লক্ষ্মীপুর-৪ আসনের মেজর (অব.) আব্দুল মান্নান, মৌলভীবাজার-২ আসনে এম এ শাহীন।

ওয়ার্কার্স পার্টির পাঁচজনও নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করবেন। মনোনয়ন প্রাপ্তরা হলেন ঢাকা-৮ রাশেদ খান মেনন, ঠাকুরগাঁও-৩ মো. ইয়াসিন আলী, রাজশাহী-২ ফজলে হোসেন বাদশা, সাতক্ষীরা-১ মুস্তফা লুতফুল্লাহ, বরিশাল-৩ টিপু সুলতান।

জাসদ (ইনু) প্রার্থীরাও নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করবেন। তারা হলেন- কুষ্টিয়া-২ হাসানুল হক ইনু, ফেনী-১ বেগম শিরীন আখতার, বগুড়া-৪ এ কে এম রেজাউল করিম তানসেন, এবং জাসদ (বাদল-আম্বিয়া) চট্টগ্রাম-৮ মইন উদ্দিন খান বাদল।

প্রার্থীরা নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করবেন বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী (চট্টগ্রাম-২) ও আনোয়ার হোসেন খান (লক্ষ্মীপুর-১)।

জাতীয় পার্টির (মঞ্জু) পিরোজপুর-২ আসন থেকে আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, কুড়িগ্রাম-৪ রুহুল আমিন নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করবেন।

-জেডসি