ঢাকা: ২০১৯-০৩-২০ ৭:৩৯

Khan Brothers Group

ঠাকুরগাঁওয়ে ২ শতাধিক গ্রামবাসীর নামে বিজিবির মামলা

এশিয়ানমেইল২৪.কম

প্রকাশিত : ০৮:৩৩ পিএম, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ শুক্রবার | আপডেট: ০৮:৩৫ পিএম, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ শুক্রবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়ে বিজিবি-গ্রামবাসী সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনায় ১৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ২ শতাধিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে হরিপুর থানায় শুক্রবার মামলা হয়েছে। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের পক্ষে নায়েব সুবেদার জহুরুল ইসলাম বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

 

মামলার বিষয়ে ঠাকুরগাঁও ৫০ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল তুহিন মো. মাসুদ জানান, মঙ্গলবার বহরমপুর গ্রামে বিজিবির উপর হামলার ঘটনায় বেতনা বিওপির নায়েব সুবেদার জহুরুল ইসলাম বাদি হয়ে ২ শতাধিক হামলাকারীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়।

 

হরিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিরুজ্জামান মামলার কথা স্বীকার করে বলেন, গত মঙ্গলবার বহরমপুর গ্রামে বিজিবির জব্দকৃত গরুকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় বিজিবি-গ্রামবাসীর সংঘর্ষ হয়। এতে গুলিতে ৩ জন নিহত ও বিজিবি সদস্য প্রায় ২০ জন আহত হয়। গরু পাচার ও ছিনতাইয়ের অভিযোগ এনে বিজিবির পক্ষ থেকে মামলায় আসামি করা হয়েছে ওইদিন গুলিতে নিহত নবাব আলী ও সাদেকুল ইসলামসহ ২ শতাধিক মানুষকে।

 

উল্লেখ্য, চোরাই গরু ঢুকেছে সন্দেহে বিজিবি সদস্যরা গত মঙ্গলবার হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়নের বহরমপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে কয়েকটি গরু জব্দ করে ট্রাকে তুললে গ্রামবাসী বাধা দেয়। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। বিজিবি সদস্যরা তখন গুলি চালালে ৩ জন নিহত হন, আহত হন বিজিবি সদস্যসহ অন্তত ২০ জন।

 

নিহতরা হলেন- রুইয়া গ্রামে নজরুল ইসলামের ছেলে নবাব আলী ও জহিরুলের ছেলে সাদেক মিয়া এবং বহরমপুর গ্রামের নূর ইসলামের ছেলে জয়নাল।

 

বিজিবির দাবি, জব্দ করা গরু বিওপিতে নেওয়ার সময় চোরা কারবারিরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। আত্মরক্ষার্থে বিজিবি সদস্যরা গুলি চালাতে বাধ্য হয়।

 

এস/এইচ