ঢাকা: ২০১৯-০৩-২২ ১৯:৫৭

Khan Brothers Group

নতুন তিন ব্যাংক নিয়ে পুরোপুরি অবহিত নই: অর্থমন্ত্রী

এশিয়ানমেইল২৪.কম

প্রকাশিত : ০৪:৫৪ পিএম, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ সোমবার | আপডেট: ০২:২১ পিএম, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ মঙ্গলবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

নিজস্ব প্রতিবেদক : সদ্য অনুমোদন পাওয়া বেঙ্গল কমার্শিয়াল ব্যাংক, সিটিজেন ব্যাংক ও পিপলস ব্যাংক সর্ম্পকে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল বলেছেন, এই মুহূর্তে আমি নতুন তিন ব্যাংক নিয়ে পুরোপুরি অবহিত নই। তাই কোনো কথা বলবো না। তিনটি ব্যাংক সম্পর্কে আগে আমাকে জানতে হবে।

সোমবার সচিবালয়ে ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকের আগে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক এবং সংশ্লিষ্ট যারা আছেন তারা সম্পূর্ণ বিচার বিশ্লেষণের ভিত্তিতেই নতুন ব্যাংকগুলোর অনুমোদন দিয়েছে দাবি করে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমি এখনও বেসরকারি নতুন তিন ব্যাংক সম্পর্কে ভালো জানি না। সংশ্লিষ্ট অফিসারদের সঙ্গে আলাপ করে বিস্তারিত তথ্য জেনে নেব। তারপর আপনাদের জানাব। তবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক যেহেতু অনুমোদন দিয়েছে তাদের প্রয়োজন না থাকলে এ কাজ করতো না। কেন্দ্রীয় ব্যাংক হয়তো প্রয়োজন অনুভব করেই অনুমোদন দিয়েছে।

আগের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত জানিয়েছিলেন, দেশে যে ব্যাংক আছে আমাদের আর নতুন কোনো ব্যাংকের দরকার হবে না। সাংবাদিকরা এ বিষয়টি উল্লেখ করলে মোস্তফা কামাল বলেন, বাংলাদেশে কতগুলো ব্যাংক আছে এটি বড় বিষয় নয়। ব্যাংকগুলো যদি নিয়ম মেনে হলে, যে উদ্দেশ্যে ব্যাংক সেভাবে যদি চলে তাহলে তো সংখ্যা নিয়ে আমি চিন্তিত নয়।

তিনি বলেন, ব্যাংকগুলোর সঙ্গে আমরা কথাবার্তা বলছি, তাদের কিছু শর্ত দেওয়া হবে। আমাদের প্রধান বিষয় ক্লাসিফায়েড লোন। এই ক্লাসিফায়েড লোন থেকে আমরা কীভাবে অব্যাহতি পেতে পারি সে বিষয়ে কথা বলব। ব্যাংকগুলোতে ইন্টারেস্ট কমাতে হবে। ক্লাসিফায়েড লোনগুলোয় হাত দিতে হবে।

ব্যাংকের আমানত ৪০০ কোটি টাকার পরিবর্তে ৫০০ কোটি টাকা হয়েছে সে বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, সেফটি রেট বড় হয়েছে। সেটি আরও ভাল খবর।

খেলাপিঋণের বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, খেলাপিঋণ দীর্ঘদিন ধরেই হয়ে আসছে। এসব খেলাপিঋণ থেকে কিভাবে অব্যহতি পেতে পারি সে বিষয়ে আমরা কথা বলছি। আমার মনে হয়, আমরা একটি সমাধানে আসতে পারবো। খেলাপিঋণ যতই বেড়ে যায় ততই ব্যাংকের খরচ বেড়ে যায়, ব্যাংক সুদ হার বেড়ে যায়। এটা আমাদের কমাতে হবে। এটা কমাতে শিগগিরই বিশেষ অডিটের ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে দেশে ব্যাংকের সংখ্যা ৫৯। এর মধ্যে ৪১টি বেসরকারি খাতের, ৯টি রাষ্ট্রায়ত্ত ও ৯টি বিদেশি মালিকানার ব্যাংক ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করছে। আর নতুন তিনটি ব্যাংক অনুমোদন দেয়ার ফলে বর্তমানে দেশে মোট ব্যাংকের সংখ্যা দাঁড়াল ৬২টি।

-জেডসি