ঢাকা: ২০১৯-০২-১৬ ৮:৫৪

Khan Brothers Group

পৃথিবীর সবথেকে উঁচু গাছ ‘হাইপিরিওন’

এশিয়ানমেইল২৪.কম

প্রকাশিত : ১২:৪৪ পিএম, ২১ জানুয়ারি ২০১৯ সোমবার

ছবি: ইন্টারনেট

ছবি: ইন্টারনেট

ডেস্ক রিপোর্ট: ২০০৬ সালের আগ পর্যন্ত পৃথিবীর সবচেয়ে উঁচু গাছ ছিল ৩৬৯ ফুট উচ্চতার। ক্যালিফোর্নিয়ার এই রেডউড গাছটি পরিচিত ছিল `স্ট্রাটোস্ফেয়ার জায়ান্ট` নামে। তবে দুই প্রকৃতিবিদ ক্রিস অ্যাটকিন্স ও মিচেল টেইলরের অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে, এই স্ট্রাটোস্ফেয়ারের চেয়েও উচ্চতার গাছ রয়েছে তিনটি। তারা ক্যালিফোর্নিয়ার রেডউড ন্যাশনাল পার্কে এ তিনটি গাছের সন্ধান পান। বৈজ্ঞানিকভাবে লেজার পদ্ধতিতে তারা এর উচ্চতা নির্ণয় করেন।  

তিনটির মধ্যে সবচেয়ে উঁচু গাছটির নাম হাইপিরিয়ন। এর উচ্চতা ৩৭৯ ফুট। ২০০৬ সালের সেপ্টেম্বরে হামবোল্ড স্টেট ইউনিভার্সিটির বাস্তুবিদ্যা বিশেষজ্ঞ স্টিভ সিল্লেটের নেতৃত্বে গাছটির উচ্চতা আবারও মাপা হয়। এবার মাপা হয় ফিতা দিয়ে। হাইপিরিয়নের উচ্চতা মাপার ওই দৃশ্যটি ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক চ্যানেলেও দেখানো হয়।



সিল্লেট জানান, গাছের উচ্চতা মাপার সবচেয়ে কার্যকর উপায় হচ্ছে এর উপরের চূড়া থেকে মাটির গোড়া পর্যন্ত ফিতা দিয়ে মেপে ফেলা। হাইপিরিয়নের উচ্চতা মাপার কাজটি সহজ ছিল না। এর সবচেয়ে নিচের শাখাটিও ২৫ তলা বিল্ডিংয়ের সমান উঁচু। প্রায় দুই ঘণ্টার অক্লান্ত পরিশ্রমের পর গাছটির উচ্চতা মাপতে সক্ষম হন তারা। মাপার পর দেখা যায় অ্যাটকিন্স ও টেইলরের দাবিই সঠিক, এর প্রকৃত উচ্চতা পাওয়া যায় ৩৭৯.১ ফুট।



এই গাছটি টিকে আছে সেই গত শতাব্দীর `৭০-এর দশক থেকে। তবে গাছটি ভাগ্যক্রমে বেঁচে যায়। কেননা, ওই সময়েই ওই বাগানের গাছ কাটার পরিকল্পনা নেওয়া হয়। কিন্তু ওই বনে গাছ কাটার একপর্যায়ে সরকার ওই এলাকাটিকে ন্যাশনাল পার্ক হিসেবে ঘোষণা করে সেখানে গাছ কাটা বন্ধ করে দেয়। `৭০-এর দশকে আমেরিকার ১৫ শতাংশ রেডউড গাছ কাটা পড়ে। আর বর্তমানে মাত্র ৪ শতাংশ রেডউড গাছ টিকে আছে।

তবে হাইপিরিয়নের বয়স এত বেশি হলেও এখনও এটিকে সজীব ও সতেজ দেখা যায়। এটি বেড়েও চলেছে দ্রুত। তবে হাইপিরিয়নের প্রকৃত অবস্থানটি কোথাও প্রকাশ করা হয়নি। কেননা এতে করে অতি উৎসাহী পর্যটকরা গাছে আরোহণ করতে শুরু করবে, ফলে এটি ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

সূত্র: ইন্টারনেট

ও/র