ঢাকা: ২০১৮-০৮-১৬ ১৩:০৮

Khan Brothers Group

বিশ্বের সবচেয়ে দামি বাড়ি সৌদি যুবরাজের!

এশিয়ানমেইল২৪.কম

প্রকাশিত : ০৬:২১ পিএম, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার | আপডেট: ০৬:১৩ পিএম, ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ বৃহস্পতিবার

ছবি: ইন্টারনেট

ছবি: ইন্টারনেট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: দেশের অর্থনীতিকে আরও শক্তিশালী করতে নানা ধরনের সংস্কারের ঘোষণা দিয়েছেন। দেশব্যাপী শুরু করেছেন দুর্নীতি বিরোধী সাঁড়াশি অভিযান। আটক করেছেন যুবরাজ, মন্ত্রী, ধনকুবেরসহ কয়েকশ মানুষকে। এসবই করেছেন সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান। এবার জানা গেছে দুই বছর আগে বিক্রি হওয়া বিশ্বের সবচেয়ে দামি বাড়িটি কিনেছেন তিনি। এর আগে তার বিশ্বের সবচেয়ে দামি চিত্রকর্ম কেনার খবর বের হয়। তার এসব টাকার উৎস নিয়ে তৈরী হয়েছে প্রশ্ন।



বিখ্যাত সংবাদ মাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমস এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, দুই বছর আগে বিক্রি হওয়া ফ্রান্সের ‘শ্যাঁতু লুই ফোরটিন’ নামের প্রাসাদসম বাড়িটি কিনেছেন সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান! মোট ৫৭ একর জায়গার ওপর তৈরি এই বাড়িটি। এর দাম ৩০ কোটি ডলার যা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ২ হাজার ৫০০ কেটি টাকার সমান।

২০১৫ সালে ফরচুন ম্যাগাজিন জানায় ‘শ্যাঁতু লুই ফোরটিন’ই বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল বাড়ি। এটি ফ্রান্সের ভার্সাইয়ের কাছে অবস্থিত। ঊনবিংশ শতাব্দীর একটি দুর্গকে ২০০৯ সালে পুনর্নির্মাণ করা হয়। বাড়িটিতে সোনার তৈরি ঝরনা ও মার্বেলের মূর্তি আছে। এছাড়া একাধিক পার্ক এবং সুইমং পুলও রয়েছে।

নিউ ইয়র্ক টাইমস বলছে, সৌদি যুবরাজের কাছে বিক্রি হওয়ার পর থেকে শ্যাঁতু লুই ফোরটিনে সর্বসাধারণের প্রবেশ নিষিদ্ধ। এই দুই বছরে এর মালিকপক্ষ একবারের জন্যও বাড়িতে আসেননি।



তবে সৌদি যুবরাজ এসব করেছেন খুব সতর্কতার সঙ্গে। তিনি কিছু শেল কোম্পানির নামে এই বিলাসবহুল বাড়িটি কিনেছিলেন। এখনও এই বাড়ির মালিকানাও আছে এসব কোম্পানির হাতে। শেল কোম্পানি হলো একধরনের নিষ্ক্রিয় আর্থিক প্রতিষ্ঠান। এগুলো মূলত ভবিষ্যতে ব্যতিক্রমী কোনো আর্থিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার জন্য ব্যবহার করা হয়। এসব শেল কোম্পানির মালিকানায় আছে এইট ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানি নামের একটি প্রতিষ্ঠান। এটি একটি সৌদি প্রতিষ্ঠান, যার ব্যবস্থাপনায় আছেন সৌদি প্রিন্স সালমানের ব্যক্তিগত ফাউন্ডেশনের প্রধান কর্মকর্তা! এভাবেই বিলাসবহুল বাড়িটি নিজের কবজায় রেখেছেন সৌদি যুবরাজ।

সৌদি রাজপরিবারের সদস্যদের উপদেষ্টারা বাড়িটি সালমানের কেনার তথ্য স্বীকার করে নিয়েছেন। তারা বলেছেন, শ্যাঁতু লুই ফোরটিন সৌদি যুবরাজের সম্পত্তি।


অন্যদিকে বারমুডার আইনি প্রতিষ্ঠান অ্যাপলবাই বলেছে, এইট ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানির মালিকানায় আছেন সৌদি রাজপরিবারের সদস্যরা।

সমালোচকরা বলছেন, নিজের ক্ষমতাকে সংহত করার জন্যই যুবরাজ সালমান এই দুর্নীতিবিরোধী অভিযান চালাচ্ছেন। নিজে দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণার কথা বললেও সাম্প্রতিক কিছু প্রতিবেদনে জানা গেছে সালমানের বিলাসবহুল সম্পদ কেনার কথা। শুধু বাড়ি নয়, সৌদি যুবরাজের ৪৫ কোটি ডলারে লিওনার্দো দ্যা ভিঞ্চির চিত্রকর্ম ও ৫০ কোটি ডলারে ইয়ট কেনার খবরও সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। সেগুলোও কেনা হয়েছে একই কায়দায় শেল কোম্পানি ব্যবহার করেই!

এইচআর/একে