ঢাকা: ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১১:৩১

মা হচ্ছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

এশিয়ানমেইল২৪.কম

প্রকাশিত : ১১:২৩ এএম, ১৯ জানুয়ারি ২০১৮ শুক্রবার | আপডেট: ১১:২৬ এএম, ১৯ জানুয়ারি ২০১৮ শুক্রবার

ছবি: ইন্টারনেট

ছবি: ইন্টারনেট


ডেস্ক রিপোর্ট : প্রথম সন্তানের মা হতে যাচ্ছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন। আগামী জুনে সন্তান জন্ম নেবে বলে আশা করছেন আরডার্ন ও তার স্বামী ক্লার্ক গেফোর্ড।

আজ শুক্রবার এ তথ্য জানিয়ে আরডার্ন বলেছেন, জুনে সন্তানের জন্মের পর ছয় সপ্তাহের ছুটিতে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন।  আর ২০১৭ সালের বছরটা আমাদের জন্য শুভযোগ ছিল।  

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, এক ইমেইল বার্তায় আরডার্ন জানিয়েছেন, সন্তান জন্ম দেওয়ার পর ছয় সপ্তাহের ছুটিতে যাবেন তিনি। এই সময়ের জন্য তিনি উপপ্রধানমন্ত্রী উইনস্টন পিটার্সের কাছে দায়িত্বভার অর্পণ করবেন। আমার কার্যালয়ে তিনি কাজ করবেন এবং সব বিষয়ে আমার সঙ্গে যোগাযোগ রাখবেন।

তিনি বলেন, ব্যক্তিগত দৃষ্টিভঙ্গিতে, মা হিসেবে আমার নতুন ভূমিকার ব্যাপারে আমি বেশ অগ্রসর। তবে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আমার কাজ ও দায়িত্বের প্রতিও আমি সমান দৃষ্টি দিচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর সন্তানসম্ভবা হয়েছেন এমন উদহারণ বিশ্বে বেশ কমই রয়েছে। নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে এটা রীতিমতো মাইলফলক। এর আগে ১৯৯০ সালে পাকিস্তানের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভু্ট্টো ক্ষমতায় থাকাকালে সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন।

 


ছবি: জেসিন্ডা আরডার্ন (ডানে) ও ক্লার্ক গেফোর্ড


১৮৫৬ সালের পর থেকে এ পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডের সবচেয়ে কনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন জাসিন্ডা আরর্ডান। গত অক্টোবরে তিনি কেন্দ্রীয় বাম (সেন্টার লেফট) জোট গঠন করেছেন। তার বয়স মাত্র ৩৭ বছর।

বিবিসি অনলাইনের খবরে জানানো হয়, স্থানীয় সময় শুক্রবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের প্রোফাইলে সন্তান আগমনের ঘোষণা দেওয়ার পর প্রচুর শুভেচ্ছা পান আরডার্ন।

গত সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে আরডার্নের লেবার পার্টি দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল। ওই নির্বাচনে কোনো দলই এককভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিশ্চিত করতে পারেনি। নিউজিল্যান্ড ফার্স্ট পার্টির নেতা উইনস্টন পিটারের সমর্থন নিয়ে সরকার গঠন করেন জাসিন্ডা আরডার্ন।

প্রধানমন্ত্রী হওয়ার মাত্র ছয় দিন আগে আরডার্ন জানতে পারেন তিনি অন্তঃসত্ত্বা। এটি তার জন্য দারুণ খবর ছিল।

জাসিন্ডা আরডার্ন বলেন, তিনিই প্রথম নারী নন যার সন্তান রয়েছে সেই সঙ্গে অন্য কাজও করছেন। এ রকমটা এর আগে অনেক নারীই করেছেন। গেফোর্ড বাড়িতে থাকবেন ও সন্তানের দেখাশোনা করবেন।

টিভি টক শোতে বিরোধী দলের নেতা আরডার্নের কাছে জানতে চান, তিনি সন্তান চান, না পেশাগত জীবনের সাফল্য চান? আরডার্ন উত্তরে বলেছিলেন, ২০১৭ সালে এ ধরনের প্রশ্ন একেবারেই মেনে নেওয়া যায় না। এটা একজন নারীর সিদ্ধান্ত, কখন তিনি সন্তান নেবেন। চাকরি বা চাকরির সুযোগের সঙ্গে এটা সম্পর্কিত নয়। আরডার্নের এ ধরনের ঘোষণা ছিল বেশ ব্যতিক্রমী।

জেডসি