ঢাকা: ২০১৯-০২-১৬ ৯:২৯

Khan Brothers Group

শীতে বেড়াতে যাবেন, সব ঠিকঠাক আছে তো?

এশিয়ানমেইল২৪.কম

প্রকাশিত : ০৪:৩৯ পিএম, ২৮ নভেম্বর ২০১৮ বুধবার

ছবি: ইন্টারনেট

ছবি: ইন্টারনেট

ডেস্ক রিপোর্ট: যান্ত্রিকতায় আচ্ছন্ন এই শহুরে জীবনে আসি আসি করে আর সুযোগ আসে না ঘুরে বেড়াবার। তবুও যদি বছর শেষে একটু আধটু অবসর আসে, তখন আর মন মানানো যায় না। আর বেড়াবার জন্য সাধারণত শীতকালই সেরা। রোদের দাপুটে প্রভাব নেই। নেই বিরামহীন বৃষ্টির ভোগান্তি। সন্তানদের পরীক্ষা শেষ হয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও থাকে ছুটি।

তবে শীতকালে বেড়াতে যাবার প্রস্তুতিটা নিতে হবে আগেভাগেই।

গন্তব্য কোথায়, কিভাবে যাবেন?

বেড়াতে যাওয়ার আগের প্রথমেই ভাবতে হয় ঘর থেকে পা ফেলার আগে গন্তব্য কোথায় । যেহেতু শীতে যাচ্ছেন তাহলে আরও ভাবতে হবে শীতকালের জন্যে ভ্রমণের কোন জায়গা গুলি উপযোগী। যাবার আগে যে ব্যাপারগুলো মাথায় রাখতে হবে তা হলো, কতদিনের জন্যে বেড়াতে যাবেন, আপনার বাজেট কত, সাগর, পাহাড়, বন, হাওর, নদী ঠিক কোন জায়গা আপনার বেশি পছন্দ, সাথে কাদের নিয়ে যাবেন, যেখানে যাবেন সেখানের সুযোগ সুবিধা কেমন। যাবেন কোন মাধ্যমে অর্থাৎ কীসে যাচ্ছেন। ভ্রমণের পরিবহণ আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আপনি বাস-লঞ্চ-ট্রেন-প্লেন-প্রাইভেট কার, কোনটায় যাবেন এটা নির্বাচন করা জরুরী। রাশ সময়ে ট্র্যাফিক জ্যাম এড়াতে স্থলপথ পরিবহণ না করাই শ্রেয়। এক্ষেত্রে ট্রেন প্রথম পছন্দ হতে পারে, আর সামর্থবান যারা, তাদের জন্য প্লেন। তবে যে পরিবহণই আপনি ব্যবহার করেন না কেন, সব থেকে বেশী যে বিষয়টা লক্ষ্য রাখবেন, তা হল আপনার জীবনের নিরাপত্তা, আপনার সুরক্ষা এবং কতটা উপভোগ্য।  

কোথায় থাকবেন?

বেড়াতে গেলে কোথায় গিয়ে উঠবেন, তার উপর আপনার ভ্রমণের অনেক আনন্দ নির্ভর করে। যেখানেই যান না কেন অবশ্যই ভ্রমণকালীন আবাস আগে থেকে ঠিক করে যাওয়াই শ্রেয়। যদি আগে থেকে সম্ভব না হয় তাহলে ভালো মতো খোঁজ খবর নিয়ে যাওয়া উচিত। ছুটির দিন গুলোতে ভিড় বেশি থাকে, হোটেল মোটেলের ভাড়া বেশি হয়, এই জিনিসটা অবশ্যই মাথায় রাখবেন। যদি সম্ভব হয় ছুটির দিন গুলো এড়িয়ে গেলে অনেক কিছুতেই খরচ কমে যাবে। খোঁজ খবর যেহেতু ঘুরতে গেলে হাতে বেশি সময় থাকে না তাই যেখানে যাবেন ঠিক করেছেন, তার আশেপাশে কি দেখার আছে, কোথায় কোথায় ঘুরতে যাবেন, কবে কখন কি করবেন তা আগেই খোঁজ খবর নিয়ে একটা তালিকা করে ফেলুন। এতে আপনার সময় বাঁচবে যেমন তেমনি সেই জায়গার ভ্রমণ স্থানগুলো দেখতে পারবেন ভালো করে। সেখানকার আবহাওয়া ও আইনশৃংখলা পরিস্থিতি সম্পর্কে খরব নিয়ে যাবেন, পাশাপাশি সেখানকার জরুরি ফোন নাম্বার এবং লোকেশন সম্পর্কে তথ্য আগে থেকে সংগ্রহ করে রাখুন। যেমন- নিকটস্থ থানা (পুলিশ), টুরিস্ট পুলিশের হেল্প ডেক্স নাম্বার, হাসপাতাল, স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র, আবাসিক হোটেল, ব্যাংক ইত্যাদি।


কিভাবে ব্যাগ প্যাকিং করবেন?

ব্যাগ প্যাকিং সাথে কি কি নিবেন তা নির্ভর করবে আপনি কোথায় বেড়াতে যাচ্ছেন, কতদিন থাকবেন তার উপর। যেমন পাহাড়ে বেড়াতে গেলে অবশ্যই ব্যাগের ওজন যত কম রাখা সম্ভব তার দিকে মন দিতে হবে। তবে যেখানেই যান না কেন ব্যাগ ভর্তি জিনিস না নিয়ে দেখেশুনে দরকারি জিনিস নেওয়াই উত্তম। একটা ভারী ব্যাগপ্যাক আপনার ভ্রমণ আনন্দ মাটি করে দিতে পারে। তাই ব্যাগ গোছানোর সময় ভেবে দেখুন আপনার একান্ত কি কি জামাকাপড় লাগতে পারে? সেগুলোর বাইরে সর্বাধিক একটি কিংবা দুটি জামা বেশী নিতে পারেন। টুথপ্রেস, ব্রাশ, আন্ডারওয়ার, গামছা বা তোয়ালে, ক্যাপ, জুতো, বেল্ট ইত্যাদি ছাড়াও অনুসাঙ্গিক আর কি কি প্রয়োজন হতে পারে তার একটা লিস্ট করুন। লিস্ট ধরে ঠিক চিহ্ন দিয়ে একটা একটা জিনিস ব্যাগে ঢুকান, এতে করে দরকারি কোন কিছু ভুলে ফেলে যাবেন না। তবে যাই লাগেজে ঢোকান না কেন একটা জিনিশ মনে রাখবেন, এই লাগেজ কিন্তু আপনাকেই বহন করতে হবে। প্রয়োজনীয় জামাকাপড়, জুতা, কসমেটিকস আলাদা করে প্যাক করুন, যাতে স্থান সঙ্কুলান হয় আবার জিনিসপত্র এলোমেলো হবে না।

কোন ধরনের পোশাক নিবেন?

শীতকালে বেড়াতে গেলে গাঢ় রঙের মোটা তাপনিরোধক কাপড়ের তৈরি জামা পরিধান করুন। তবে খেয়াল রাখবেন শীতের কাপড়ের ওজন যত সম্ভব যেন কম হয়। তা না হলে আপনার ব্যাকপ্যাক ভারি হবে শীতের পোশাকে। ঠান্ডা থেকে বাঁচার জন্যে সাথে করে মাফলার, মোজা, গ্লাভস, হুড সহ কাপড় পরিধান করতে পারেন। জামার রং অবশ্যই একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যা আমরা ভ্রমণে বের হবার সময় লক্ষ্য রাখা উচিত। উজ্জ্বল রঙের কাপড়ে ছবি সুন্দর হয়। তবে পাহাড় বা বনাঞ্চলে ভ্রমণের সময় অবশ্যই উজ্জ্বল কোন রঙের জামা পরিধান করা উচিত নয়। প্রচুর হাঁটতে হবে এমন ট্যুরে সাদা রঙের জামাই শ্রেয়।

ও/র