ঢাকা: ২০১৮-১১-১৪ ২২:২৪

Khan Brothers Group

হাত নিশপিশ করে এনামুল জুনিয়রের

এশিয়ানমেইল২৪.কম

প্রকাশিত : ০৫:৪৩ পিএম, ৩ নভেম্বর ২০১৮ শনিবার | আপডেট: ০৫:৪৪ পিএম, ৩ নভেম্বর ২০১৮ শনিবার

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের প্রেস বক্সের করিডোরে এনামুল জুনিয়র। ছবি-শামীম চৌধুরী

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের প্রেস বক্সের করিডোরে এনামুল জুনিয়র। ছবি-শামীম চৌধুরী

শামীম চৌধুরী: সিলেটের ক্রিকেটের গৌরবগাঁথার কথা উঠলে যে ক’জন ক্রিকেটারের নাম কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরন করতে হবে তাদের কাতারে থাকবেন বাঁ হাতি স্পিনার এনামুল জুনিয়র। বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট এবং প্রথম টেস্ট সিরিজ জয়ের নায়ক এই বাঁ হাতি স্পিনার শনিবার সকালে সিলেটের টেস্ট অভিষেকেরও স্বাক্ষী হয়েছেন।

সিলেট বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার আমন্ত্রিত অতিথি হয়ে সকালে সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের টেস্ট অভিষেকে পেয়েছেন বিশেষ স্মারক। প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ে বলেই ফিরে গেছেন নস্টালজিয়ায়। ১৩ বছর আগে চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে ম্যাচ উইনিং বোলিংয়ের স্মৃতি ভেসে উঠেছে তার চোখে।

বাঁ হাতি স্পিনার তাইজুলের হাতে যখন উঠেছে বল, তখন নিজের হাতটা করেছে নিশপিশ। প্রেস বক্সে এসে এই প্রতিবেদককে দেয়া সাক্ষাতকারে সেই অনুভুতির কথাই জানিয়েছেন বাঁ হাতি স্পিনার তাইজুলের হাতে যখন উঠেছে বল, তখন নিজের হাতটা করেছে নিশপিশ। প্রেস বক্সে এসে এই প্রতিবেদককে দেয়া সাক্ষাতকারে সেই অনুভুতির কথাই জানিয়েছেন-‘ তাইজুল যখন বল হাতে নিয়েছে, তখন মনে হয়েছে, আমি বুঝি বল করছি।’

সিলেটের টেস্ট অভিষেকে নেই তিনি, তা ভীষন পীড়া দিচ্ছে এনামুল জুনিয়রকে-‘ এক সময়ে স্বপ্ন দেখতাম হোম গ্রাউন্ডে টেসট খেলব।  যখন শুনেছি সিলেট স্টেডিয়াম টেস্ট ভেন্যু হচ্ছে, তখন থেকেই এই স্বপ্নটা একটু বেশি করে দেখতে শুরু করেছি।’

১৪ টেস্টে ৪৪ উইকেটের মধ্যে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩ টেস্টে ২১ উইকেট। ২ ম্যাচের টেস্ট সিরিজে ১৮ উইকেটে এক সময়ে ওয়ার্ল্ড রেকর্ডটা ছিল তার। মাত্র ১৮ বছর বয়সে তার ওই রেকর্ডটি ৮ বছর পর ভেঙ্গেছেন আর এক বাংলাদেশী বোলার, অফস্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ।

নিজের সেই রেকর্ডটা অক্ষুন্ন রাখতে না পেরেও গর্ব অনুভব করছেন এনামুল জুনিয়র-‘ ওই রেকর্ডটা তো আর এক বাংলাদেশী ভেঙ্গেছে, তাই ভাল লাগছে।’ সিলেটে জিম্বাবুয়ের যে দলটি খেলছে টেস্ট, সেই দলের অধিনায়ক মাসাকাদজা,টেলরকে চেনেন এনামুল জুনিয়র। বাংলাদেশের স্পিন শক্তির সঙ্গে কুলিয়ে উঠতে পারবে না জিম্বাবুয়ে, সে বিশ্বাস করেন এই বাঁ হাতি স্পিনার।  

নির্বাচকরা এখন ক্রিকেটারদের বয়স বিবেচনা করেন। কোন ক্রিকেটার জাতীয় দলে ফিরে কতোদিন সার্ভিস দিতে পারবে, সেই হিসাবটাও করেন। দুই থেকে তিন বছর সার্ভিস দিতে পারবে না যে, ঘরোয়া ক্রিকেটে তার পারফরমেন্স বিবেচনায় আনছেন না তারা। মিডিয়াকে এই স্ট্যাটেজীর কথা জানিয়েছেন নির্বাচকরা। সে কারনেই ৩১ বছর বয়সে দাঁড়িয়ে টেস্ট দলে ফেরার আশা এনামুল জুনিয়রের ফিকে হয়ে যাওয়ার কথা। তবে ৩১ বছর  বয়সে কেন টেস্ট দলে ফেরার আশা ছেড়ে দিবেন ? নিজের কাছেই এ প্রশ্ন এনামুল জুনিয়রের-‘ আমি তো স্পিনার। আমি আরো পাঁচ-ছয় বছর দলকে সার্ভিস দিতে পারব। তাই টেস্ট দলে ফেরার আশা ছাড়িনি।’

টেস্ট দলে ফেরার জন্য ফিটনেসটা ঠিক রেখেছেন এনামুল জুনিয়র-‘ এখন নিজেকে টগবগে তরুনই মনে হয়, জাতীয় লিগের আগে নির্বাচকদের ফিটনেস পরীক্ষায় আমি ১২ পয়েন্ট পেয়ে তা প্রমান করেছি। ’

জাতীয় দলের বাইরে থেকে প্রথম শ্রেনীর ক্রিকেটে ধারাবাহিক পারফর্ম করছেন, দেখতে দেখতে প্রথম শ্রেনীর ক্রিকেটে বাংলাদেশের দ্বিতীয় বোলার হিসেবে সাড়ে চারশ’ উইকেট ( ১১৯ম্যাচে ৪৫৩ উইকেট) হয়ে গেছে তার। সামনে লক্ষ্য এখন প্রথম শ্রেনীর ক্রিকেটে ৫’শ উইকে।

তবে ধারাবাহিক পারফরমেন্সের পেছনে কাজ করছে টেস্ট দলে ফেরার দৃঢ় মনোবল, তা মনে করছেন এনামুল জুনিয়র-‘ টেস্ট এ ফিরব বলেই জাতীয় লিগে  ধারাবাহিকভাবে ভাল খেলছি। আশা করছি,নির্বাচকরা আমার  পারফরমেন্স বিবেচনায় আনবেন। আমি একটি টেস্ট হলেও ফিরতে চাই দলে।’

ও/র