ঢাকা: ২০১৯-০২-২০ ২৩:১১

Khan Brothers Group

হেকেপের অর্জন অনেক, শীঘ্রই উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়নে বৃহৎ প্রকল্প

এশিয়ানমেইল২৪.কম

প্রকাশিত : ০৮:৪৮ পিএম, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮ বুধবার | আপডেট: ১২:৩৩ পিএম, ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮ বৃহস্পতিবার

ছবি: হেকেপ কর্মশালায় অংশ নেয়া বক্তারা

ছবি: হেকেপ কর্মশালায় অংশ নেয়া বক্তারা

নিজস্ব প্রতিবেদক : জ্ঞান বিতরণের পাশাপাশি ও নতুন জ্ঞান সৃষ্টি করা উচ্চশিক্ষা খাতের অন্যতম কাজ। বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষা ও গবেষণার প্রয়োজনীয় অবকাঠামোর ঘাটতির কারণে নতুন জ্ঞান সৃষ্টিতে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো কাক্ষিত সাফল্য অর্জন করতে পারেনি। কিন্তু বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর উচ্চশিক্ষা মানোন্নয়ন প্রকল্প নামে উচ্চশিক্ষা খাতে প্রথম প্রকল্প গ্রহণ করে। এ প্রকল্পের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আধুনিক শিক্ষা ও গবেষণা পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো গড়ে তোলা হয়েছে। ইতোমধ্যে বিভিন্ন গবেষণার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক মানের বেশকিছু উদ্ভাবন সম্ভব হয়েছে যা সারা বিশ্বে সুনাম অর্জন করেছে।খুব শীঘ্রই উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়নে আরো বৃহৎ প্রকল্প আসছে।

উচ্চশিক্ষা মানোন্নয়ন প্রকল্পের অর্জনসমূহ নিয়ে আয়োজিত জাতীয় কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা সচিব সোহরাব হোসেন একথা বলেন।

সচিব বলেন, গবেষণা উদ্বাবনীতে অনেক সম্ভাবনাময় একটি দেশ হচ্ছে বাংলাদেশ। এ জন্য প্রয়োজন গবেষণার জ্ঞান বাণিজ্যিকীকরণ। গবেষকদের আবিষ্কারগুলোকে বাণিজ্যিকীকরণ করতে পারলে বাংলাদেশ অনেক লাভবান হবে। যদি তা না করা সম্ভব হয়, তবে এসব উদ্ভাবনে ভালো ফল আসবে না। গত ১০ বছরে উদ্ভাবনীতে নতুন দিগন্তের উন্মোচন করেছেন এদেশের গবেষকেরা।

তিনি বলেন, হেকেপ প্রকল্পের ম্যধ্যমে ইতিমধ্যে বিশ্বমানের উদ্ভাবন সম্ভব হয়েছে, যা সারা বিশ্বের গবেষকদের আলোড়িত করেছে।প্রকল্পের মাধ্যমে গড়ে তোলা অবকাঠামোসমূহ সচল রাখতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে আরও যত্নবান হতে হবে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দিতে সরকার আন্তরিক বলে তিনি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন।

দিনব্যাপি কর্মশালার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সদস্য প্রফেসর ইউসুফ আলী মোল্লা, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মাহমুদ-উল হক ও বিশ্বব্যাংকের সিনিয়র অপারেশনস অফিসার ড. মোখলেসুর রহমান। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন উচ্চশিক্ষা মানোন্নয়ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড. গৌরাঙ্গ চন্দ্র মোহান্ত।

সভাপ্রধানের বক্তব্যে ইউজিসি চেয়ারম্যান বলেন, উচ্চশিক্ষা মনোন্নয়ন প্রকল্প উচ্চশিক্ষা খাতের দৃশ্যপট বদলে দিয়েছে। প্রকল্পের বরাদ্দকৃত অর্থ ব্যবহারের পরিমাণ ৯৯% যা বাংলাদেশের যেকোন উন্নয়ন প্রকল্পর জন্য বিরল ঘটনা।বিশ্বব্যাংক কর্তৃক সম্প্রতি পরিচালিত পর্যালোচনায় উচ্চশিক্ষা মানোন্নয়ন প্রকল্পের বাস্তবায়ন অগ্রগতিকে অতি সন্তোষজনক হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রকল্পের ম্যধ্যমে অল্প অর্থ ব্যয় করে বিশ্বমানের উদ্ভাবন সম্ভব হয়েছে যা সারাবিশ্বের গবেষকদের আলোড়িত করেছে। এরই মাঝে বেশকিছু উদ্ভাবনের জন্য দেশে বিদেশে প্যাটেন্ট আবেদন দাখিল করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন বর্তমান সরকার উচ্চশিক্ষার সম্প্রসারণের পাশাপাশি এর মানোন্নয়নেও বদ্ধপরিকর। বর্তমানে ৩৮ লক্ষ শিক্ষার্থী উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত আছে। মোট শিক্ষার্খীর ৪২ ভাগ নারী। এ সংখাকে ৫০ ভাগে উন্নীত করার লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, শিক্ষক, সরকারি কর্মকর্তা, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন ও উচ্চশিক্ষা মানোন্নয়ন প্রকল্পের কর্মকর্তা ও কনসাল্ট্যান্টগণ উপস্থিত ছিলেন।

-জেডসি

এই বিভাগের জনপ্রিয়